Tuesday , October 4 2022
Home / GK / GK:পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন জেলার উল্লেখযোগ্য বিষয়

GK:পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন জেলার উল্লেখযোগ্য বিষয়

পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন জেলার উল্লেখযোগ্য বিষয়

*বাঁকুড়াঃ-* ৹ বাঁকুড়া জেলার ‘ধুপছায়া শাড়ি’ বিখ্যাত৹ বিষ্ণুপুর টেরাকোটা ও হস্তশিল্কপের জন্য বিখ্যাত। ৹ বিষ্ণুপু্রের বালুচরী শাড়ী বিখ্যাত।৹ মুকুটমনিপুর অন্যতম পর্যটন কেন্দ্র।৹ জয়রামবাটী সারদা মায়ের জন্মস্থান।৹ শুশুনিয়া ও বিহারীনাথ পাহাড় অন্যতম আকর্ষন।

*মুর্শিদাবাদঃ-* ৹ বাংলার নবাবী আমলের প্রানকেন্দ্র।৹ হাজারদুয়ারী প্রধান পর্যটন কেন্দ্র।৹ হাজারদুয়ারির সামনেই আছে পশ্চিমবঙ্গের বৃহত্তম ইমামবারা।৹ মতিঝিল, লালাবাগ পর্যটকদের অন্যতম আকর্ষন।৹ ঐতিহ্যমন্ডিত বালুচরী শাড়ির জন্য মুর্শিদাবাদ জেলার জিয়াগঞ্জ বিখ্যাত ।

*মালদাঃ-* ৹ পশ্চিমবংগের ৯০% তুঁতগাছের চাষ- মালদহ জেলায় হয়।৹ পান্ডুয়া একটি ঐতিহাসিক স্থান।৹ একলাখি সংগ্রহশালা পান্ডুয়ার অন্যতম আকর্ষন।৹ আদিনা মসজিদ পান্ডুয়াতে অবস্থিত। সিকান্দার শাহ তৈরি করেন।৹ চারু বাবুর মেলা, রামকেলি মেলা বিখ্যাত।

*পুরুলিয়াঃ-* ৹ পুরুলিয়া জেলার লাক্ষাশিল্প বিখ্যাত । ।৹ ব্রাহ্মনী জলপ্রপাত আছে।৹ ছৌ নৃত্য, ঝুমুর গান, ঘোরা গান বিখ্যাত।৹ ছৌ নাচের মুখোষ তৈরি হয়৹ সাঁওতাল, মুন্ডা, খেড়িয়া, শবর, হো, বিরহার প্রভৃতি আদিবাসীদের বাসস্থান।৹ টুসু, ভাদু, রাসমেলা, শিবের গাজন বিখ্যাত।৹ অযোধ্যা পাহাড়, জয়চন্ডী পাহাড় প্রাকৃতিক সৈন্দর্য্যের জন্য বিখ্যাত।

*কোচবিহারঃ-* ৹ কোচবিহার রাজপ্রাসাদ বিশেষ দ্রষ্টব্য স্থান। মহারাজা নৃপেন্দ্র নারায়ন ১৮৮৭ সালে তৈরি করেন।৹ রসিকবিল পর্যটকদের অন্যতম আকর্ষন।যাযাবর পাখির বিচরণক্ষেত্র।

*উত্তর দিনাজপুরঃ-* ৹ এখানে রাজবংশী তপশীলি জাতির মানুষ বাস করেন ।৹ এই জেলায় ভ্যারেন্ডা গাছে এন্ডি পোকার চাষ হয়, যা থেকে সুক্ষ্ম রেশম সুতো নির্গত হয় ।৹ কুলিক পাখিরালয় অবস্থিত।৹ কুলিক এশিয়ার দ্বিতীয় বৃহত্তম পাখিরালয়।

*হুগলী:-* ৹ পর্তুগীজরা সর্বপ্রথম হুগলীতে উপনিবেশ গড়ে। ৹ পর্তুগীজরাই হুগলী-চুঁচুড়া শহর স্থাপন করে।চুঁচুড়া পূর্বে ডাচ উপনিবেশ ছিলচন্দননগর পূর্বে ফরাসী উপনিবেশ ছিল।৹ ভদ্রেশ্বর এ জার্মান ও অষ্ট্রিয়ানদের উপনিবেশ ছিল।৹ কামারপুকুর রামকৃষ্ণ পরমহংসদেবের জন্মস্থান।৹ তারকেশ্বর হিন্দুদের পবিত্র তীর্থস্থান।৹ চন্দননগরের জগদাত্রী পূজো বিখ্যাত।৹ব্যান্ডেল চার্চ বিখ্যাত।

*নদীয়াঃ* -৹ নবদ্বীপ, শ্রী চৈতন্যদেবের জন্মস্থান।৹ মায়াপুরের ইস্কন মন্দির প্রধান আকর্ষন।৹ পলাশীর ঐতিহাসিক পলাশীর যুদ্ধের জন্য প্রসিদ্ধ।৹ শান্তিপুর তাঁতের শাড়ির জন্য বিখ্যাত।৹ কৃষ্ণনগর মৃৎশিল্পের জন্য বিখ্যাত।৹ ওয়েষ্টবেঙ্গল ডেয়ারি এন্ড পোলট্রি ডেভলেপমেন্ট কর্পোরেশন অবস্থিত নদীয়া জেলার হরিনঘাটায়

*বর্ধমানঃ-* ৹ কালনা অন্যতম শহর ও তীর্থক্ষেত্র।কার্জনগেট, লর্ড কার্জনকে অভ্যর্থনার জন্য তৈরি হয়েছিল।

*বীরভূমঃ-* ৹লাল মাটির দেশ বলা হয়।৹শান্তিনিকেতন রবীন্দ্রনাথের স্মৃতি বিজরিত।৹নানুর, কবি চন্ডীদাসের জন্মস্থান।৹কেঁদুলির জয়দেবের মেলা বিখ্যাত।৹ তারাপীঠ হিন্দুদের পীঠস্থান।৹‘তিলপাড়া ব্যারেজ’ অবস্থিত বীরভূমে ময়ুরাক্ষী নদীর উপর

*জলপাইগুড়িঃ-* ৹টোটো উপজাতীর মানুষ জলপাইগুরি জেলার মাদারিহাটে বাস করে।

*আলিপুরদুয়ারঃ-* ৹ জলদাপাড়া, একশৃঙ্গ গন্ডারের জন্য বিখ্যাত।৹ বক্সা, অন্যতম ব্যঘ্র প্রকল্প।৹ নলরাজা গড়, এটি গুপ্ত যুগে নির্মিত নল রাজাদের একটি দূর্গ।

*হাওড়াঃ-* ৹ হাওড়া ব্রীজ অর্থাৎ রবীন্দ্র সেতু বিখ্যাত।৹ বোটানিকাল গার্ডেন ভারতের বৃহত্তম।৹ গড়চুমুক, ভাগীরথী ও দামোদরের সংগমস্থলে অবস্থিত। ইহা লকগেটের জন্য বিখ্যাত।৹গাদিয়ারা, জনপ্রিয় পিকনিক স্পট।৹ ভারতের গ্লাসগো বলে বলা হয় ।

*উত্তর ২৪ পরগনাঃ-* ৹ ১৯৮৩ সালে ডঃ অশোক মিত্রের প্রশাসনিক সংস্কার কমিটি ২৪ পরগনা জেলা বিভাজনের সুপারিশ করে, কিন্তু ১৯৮৬ সালের ১ লা মার্চ জেলাটি আনুষ্ঠানিক ভাবে বিভাজিত হয় ।৹ দক্ষিনেশ্বর, হিন্দুদের বিখ্যাত পীঠস্থান।৹ বিভুতিভূষন অভয়ারন্য আছে বনগাঁ এর সন্নিকটে।৹ ব্যারাকপুরে আছে গান্ধীঘাট।

*দক্ষিন ২৪ পরগনাঃ-* ৹ সুন্দরবনে আছে ম্যানগ্রোভ অরন্য।৹ বকখালিতে আছে পর্যটন কেন্দ্র।৹ সাগরদ্বীপে আছে কপিল মুনির আশ্রম।

*পূর্ব মেদিনীপুরঃ-* ৹ দীঘার সমুদ্র সৈকত পর্যটকদের অন্যতম প্রধান আকর্ষন।৹ শংকরপুরে গড়ে উঠেছে মৎস বন্দর।৹ হলদিয়া বন্দর।৹ জুনপুট, মন্দারমনির সমুদ্র সৈকত।

*পশ্চিম মেদিনীপুরঃ-* ৹ কাকড়াঝোড়, শাল-সেগুনের জঙ্গল।৹ ট্রেকিং করা হয়।৹ বেলপাহাড়ি, দলমা পাহাড়ের পাদদেশে অবস্থিত এক নৈসর্গিক নয়নাভিরাম জায়গা।

*দার্জিলিং:-* ৹ তিব্বতি ভাষায় দার্জিলিং শব্দের অর্থ বজ্রের দেশ ।৹ পশিমবঙ্গের পাহাড়ের রানী।৹ শিলিগুড়ি, পূর্ব ভারতের প্রবেশদ্বার।৹ মংপু, সিঙ্কোনা চাষের জন্য বিখ্যাত।৹ দাঋলিং এর ট্য়ট্রেন ইউনেসকো হেরিটেজ এর স্বীকৃতি পেয়েছে।

*কালিম্পং:-* ৹ থাপরা মঠ, থোংসা মঠ আছে।৹ দুরপিন দন্ড আছে।

*ঝাড়গ্রামঃ-* ৹ ঝাড়্গ্রাম, শাল-মহূলের জঙ্গল।

Check Also

পর্যায় সারনির বিভিন্ন মৌলের কাজ।

1.হাইড্রোজেন (H)রকেটে জ্বালানি হিসেবে ব্যবহার হয় । 2.হিলিয়াম (He)গ্যাস বেলুনে ব্যবহার হয় । 3.লিথিয়াম ( …

Leave a Reply

Your email address will not be published.